Blogging Tutorial

ব্লগিং এর আগ্রহ কমে যাচ্ছে বাংলাদেশে ? বাংলার ব্লগিং ইতিহাস !!

বাংলার ব্লগিং ইতিহাস

ব্লগাররা নিজেই বলেছে যে ব্লগিং এর আগ্রহ এখন অনেক কমে গেছে ।

বাংলাদেশ এ ২০১৩ / ২০১৪ তে যে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে শাহবাগে যে আন্দোলন শুরু হয়েছিল তার মূলে ছিলো অনলাইন এক্টিভিস্ট বিশেষ করে ব্লগার দের একটি অংশ ।

ওই আন্দোলন চলাকালীন সময়েই মিরপুর এ খুন হয়েছিল বিখ্যাত ব্লগার Rajib Haider . ( আমি তখন ক্লাস ৫ এর ছাত্র 🐸 ) এবং এর পরই একে একে খুন হয়েছিল আরো অনেক ব্লগার ।

অন্য দিকে শাহবাগে আন্দোলন শেষ হওয়ার পর পরই দেশ ছেড়ে বিদেশে চলে যায় অনেক সুপরিচিত ও বিখ্যাত কিছু ব্লগার ।

Blogger Arif বিবিসি বাংলা কে বলেছেন ব্লগিং এর সেই ক্রেজ এখন আর নেই ।

“তবে এর আসল কারণ শাহবাগে সেই হুমকি বা খুনের ঘটনা গুলো নয় । তবে এগুলোর একটা হালকা প্রভাব হয়তো এখনো আছে । কিন্তু ব্লগিং কমে যাওয়ার মূল কারণ সেই প্রযুক্তিই”

উনার মতে ” তখন ফেসবুক এবং যোগাযোগের অন্যন্যা মাধ্যম গুলো তেমন জনপ্রিয় ছিলো না তাই তখন ব্লগিং ই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল । কিন্তু এখন প্রায় সবাই ই নিজের ফেসবুক পেজ বা প্রোফাইল এ লিখছে যা মূহুর্তে অনলাইনে ছড়িয়ে পড়েছে ।

আরেকজন সুপরিচিত Blogger Baki Billah বলেছেন এটা ঠিক যে ২০১৩ সালে শাহবাগের কারণে বাংলা ব্লগিং এর বিষয়টি ব্যাপকভাবে প্রচার পেয়েছে ।

” কিন্তু Community Blogging ( কোনো একটি ব্লগিং প্লাটফর্ম এ অনেকে মিলে লেখা মানে গ্রুপ ব্লগিং ) আসতে আসতে কমে আসতেছিলো । এবং নিজ নিজ ব্যক্তিগত ব্লগিং বেড়ে আসছিলো । এর পর থেকেই ফেসবুক আসলো এবং ব্যক্তিগত ব্লগিং একদমই কমে আসলো ”

ব্লগারদের কাছে থেকে পাওয়া তথ্যানুসারে জানা যায় যে প্রথম বাংলা ব্লগিং শুরু হয়েছিল ২০০৫ সালের দিকে । এবং কয়েক বছরে তা ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়ে বিশ্বব্যাপি প্রায় ৫০০ বাংলা ব্লগ চালু হয়ে গিয়েছিল । এবং পরবর্তীতে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় হয়ে ওঠে সামহোয়ার ইন ব্লগ এবং সচলায়তন সহ আরো বেশ কিছু ব্লগ । আর ২০১৩ সাল থেকে এই কয়েক বছরে ঘুরে ফিরে এসেছে এই ব্লগিং এবং ব্লগ বিষয় গুলো ।

বাংলার ব্লগিং ইতিহাস

ধর্মভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম শাহবাগ আন্দোলনের পরপর ৮৪ সাল ব্লগারদের নাম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে দিয়ে তাদের শাস্তি দাবি করেছিলেন । এর মধ্যে বেশ কয়েক জন খুন হয়েছিল এবং বিভিন্ন সময়ে আটক হয়ে জেলও খেটেছেন অনেকেই । আবার অনেকে হামলা ও হুমকির সম্মুখীন হয়ে দেশ ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিল বিদেশে । এবং অনেক কমিউনিটি ব্লগার বন্ধ হয়ে যায় এইসময় টা তে ।

উল্লেখযোগ্য একটি পেচাব্লগ ডট কম একটি । ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর তরুণদের একটি অংশ এই ব্লগটিতে সক্রিয় ছিলো । ২০১০ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত সক্রিয় ছিলো এই ব্লগটি । এবং ২০১৪ সালে এটি একেবারেই বন্ধ করে দেয়া হয় । ১ হাজারের বেশি সদস্য ছিলো এই ব্লগে ।

এই ব্লগটি তে মূলত রাজনীতি , মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিয়ে বিভিন্ন ক্যাম্পেইন করা হতো বলে BBC Bangla কে জানান পেচাব্লগ ডট কম এর প্রধান এডমিন এনায়েত শাওন ।

“আমরা এইসকল বিষয়ে বিভিন্ন ক্যাম্পেইন করেছি এটা সত্যি । তবে নোংরা ও অশ্লীল ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করতেও দিতাম না । তারপরেও একের পর এক হুমকির সম্মুখীন হতে হয়েছে যার ফলে আমরা ব্লগটিই বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছি ।

তার মতে ব্লগিং এর বিরুদ্ধে এত পাল্টা ক্যাম্পেইন হয়েছিল যে সাধারণ কবি সাহিত্যিক ও ব্লগিং ছেড়ে ব্যক্তিগত পেজ চালু করতে শুরু করে দেই , বিশেষ করে ফেসবুক আসার পরই ।

এনায়েত শাওন বলেন ” ফেসবুকে তখন আনলিমিটেড বাংলা লেখার সুযোগ তৈরি হলো তখন থেকেই বাংলা ব্লগিং এর ধ্বস নেমে এলো ।

বাংলার ব্লগিং ইতিহাস

প্রায় সেইম মতামত দিয়েছেন আরিফ জেবতিক ও । তিনি জানান ” সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে এখন সহজেই কথা বলা যায় । এখন অল্প কথাতেও বোঝানো সম্ভব হয়েছে । এবং এই কারণে বেসিক লেখালেখি গুলো ও কমে এসেছে । বলা যায় প্রজন্মের পরিবর্তন এসে গেছে প্রযুক্তির হাত ধরে । ”

আবার এখন হাতে হাতে মোবাইল থাকায় ফেসবুক ই হয়ে উঠেছে ভাব প্রকাশের মাধ্যম যার ফলে ধ্বস নেমেছে ব্লগিং এ । বলেছেন জেতবিক ।

আর এদিকে বাকি বিল্লাহ বলেছেন ব্লগিং বিষয় টাকে পরিকল্পিত ভাবে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে ।

” শাহবাগ আন্দোলনের সংগঠকদের অনেকেই ব্লগার ছিলো সেটাই হয়তো এর মূল কারণ ছিলো । তবে ব্লগার পরিচয়ে খুন হওয়ার মধ্যে অনেক ই ছিলো সাধারণ নিরপরাধ মানুষ । ”

সামহোয়ারইনসামহোয়ারইন ব্লগে বিখ্যাত একজন ব্লগার বাকী বিল্লাহ বলেছেন ” এখন ফেসবুকেই লিখা লিখি করি । এখন Social Media এর নেশা ব্লগিং টাকে একেবারে কমিয়ে দিয়েছে । আরোও অন্য ঘটনার প্রভাব তো ছিলোই । ”

তিনি বলেছেন ব্লগিং এর জায়গায় এখন ফেসবুক এবং ফটো ব্লগিং এর জায়গা টাও নিয়ে নিচ্ছে ইন্ট্রাগ্রাম ।

shusmoy

Content Creator || Blogging || Digital Marketer ||

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *